no-more-excuses

MD.Raju / সেপ্টেম্বর 10, 2020

অজুহাত নয় চেষ্টায় আসবে সফলতা

শেয়ার করুন আপনার বন্ধুদের সাথে
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আপনি কি সফল হতে চান? তবে এখনই অজুহাত দেখানো বন্ধ করুন। সফল ব্যক্তিদের একটি অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ গুণ হল  পরিস্থিতি যেমনই হোক না কেন কখনো ব্যর্থতার পেছনে তারা কোন অজুহাত দাড় করায় না।
বেশিরভাগ লোকেরা তাদের স্বপ্ন পূরন করতে ব্যর্থ হয় কারণ তারা তাদের ভয় নিয়ে বেঁচে রয়েছে। তারা এটি করতে না পারার কারণগুলির ন্যায্যতা প্রমাণ করতে নানান ধরনের অজুহাত দেখায়।
সফল ব্যক্তিরা যারা জীবনে অসাধারণ ফলাফল অর্জন করেছেন তারা কখনো অজুহাত দেখান না। তারা দায়িত্ব নেন এবং নিষ্ঠার সাথে তা পালনও করে থাকেন। আপনি যখন দায়িত্ব নেন এবং অজুহাত না দেখান, সাফল্য আপনার পথে আসতে শুরু করে।

টনি রবিনস বলেছেন,
” সবারই দুটি মাত্র বিকল্প রয়েছে: অগ্রগতি করুন নইতো অজুহাত তৈরি করুন “

যখন আপনার সামনে কোন সংকট আসে তখন হয়ত আপনি অজুহাত তৈরি করেন এবং নিজেকে বা অন্যকে বুঝাতে চেষ্টা করেন অথবা আপনি বিরূপ পরিস্থিতিকে অগ্রগতি সাধনে ব্যস্ত হয়ে পড়েন।
মনে রাখবেন, প্রতিটি কারণ যার জন্য আপনি ভাবেন যে আপনি পারবেন না, কমপক্ষে এমন কয়েকশো ব্যক্তি রয়েছেন যারা আপনারই মত একইরকম পরিস্থিতির মুখোমুখি হয়েছিলেন এবং সফল হয়েছেন।
সুতরাং এখন থেকে সকল ফালতু অজুহাত তৈরি করা বন্ধ করুন। বা কমপক্ষে, এগুলিকে কম করুন যাতে আপনি অগ্রগতি শুরু করতে পারেন। এখানে কিছু সাধারণ অজুহাত তুলে ধরার চেষ্টা করছি যা আমাদের সফল জীবন অর্জন ও জীবনযাপন থেকে বাধা দেয়।

১) হাতে সময় নেই বা আমি খুব ব্যস্তঃ
লোকেদের মধ্যে অন্যতম সাধারণ অজুহাত হচ্ছে হাতে সময় নেই বা আমি খুব ব্যস্ত। আপনি যখন তাদের জিজ্ঞাসা করেন যে তারা কেন ব্যবসা করছেন না, তারা আপনাকে বলবে যে তাদের কাছে সময় নেই।
আমার এক বন্ধু আছে যে সবসময় ইন্টারনেট ব্যবসা শুরু করার কথা বলে। তিনি যখন কাউকে ইন্টারনেট থেকে জীবিকা নির্বাহ করতে দেখেন, তখন তিনি অনুপ্রাণিত হন এবং এটি করতে চান।
তবে আপনি যখন তাকে জিজ্ঞাসা করবেন তিনি কেন এটি করছেন না, তিনি আপনাকে বলবেন যে তাঁর হাতে সময় নেই।
আপনাকে বুঝতে হবে যে আমাদের সকলের জন্য দৈনিক ২৪ ঘন্টা সময় থাকে। আপনার কাছে সময় নেই এমন নয়, আসলে কাজ গুলো কিভাবে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পরিচালনা করবেন তা আপনি জানেন না।

কিছু লোক তাদের সময়টি বুদ্ধি বা প্লানিং করে ব্যবহার করে। তারাই পায় সফলতা। সুতরাং অজুহাত দেখান বন্ধ করুন এবং আপনার সমস্যাগুলো অগ্রাধিকারভিত্তিতে নতুন করে পরিকল্পনা করতে শুরু করুন।
আপনি যদি ৮ ঘন্টা কাজ করেন এবং ৮ ঘন্টা ঘুমাতে ব্যয় করেন তবে আপনি অন্যান্য কাজের জন্য আরও ৮ ঘন্টা পান। তাহলে কীভাবে আপনি এই ৮ ঘন্টা ব্যয় করবেন?

আপনি কীভাবে আপনার সময় কাটাচ্ছেন তার উপর নির্ভর করে আপনি সফল হবেন কি না।

আপনি কি এক ঘন্টা আপনার ফোনে গেমস খেলেন? আপনি কি আরও এক ঘন্টার জন্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক এবং ইনস্টাগ্রামে আপডেটগুলি চেক করেন?  আপনি কি বেশিরভাগ সময় ইউটিউব দেখেন?
যদি আপনার লক্ষ্যটি একটি সফল ব্লগ তৈরি করা হয় তবে আপনি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আপনার বেশিরভাগ সময় নষ্ট করছেন এবং ইউটিউবে খুব বেশি ভিডিও দেখছেন, এর সহজ অর্থ হল আপনার লক্ষ্যটিকে অগ্রাধিকার দিচ্ছেন না।
যখন কোনও কিছুকে অগ্রাধিকার দেন তখন এটি অর্জনে যা যা লাগে আপনি তা করবেন।

সুতরাং আপনার কাছে সময় নেই তা বলবেন না। আপনার সময় পরিকল্পনা মাফিক পরিচালনা করতে শিখুন। এবং এমন বিষয়গুলির জন্য আপনার সময় ব্যয় করুন যা আপনার জন্য গুরুত্বপূর্ণ।
রিচার্ড ব্রানসন, ওয়ারেন বাফেট, বিল গেটস, ইলন মাস্ক এর ও আপনার মত দিনে 24 ঘন্টা সময় পেয়েছিলেন। তারা যদি উন্নতির চরম শিখরে আরোহণ করতে পারেন, তবে কেন আপনি ব্যর্থ হবেন।
সুতরাং, আপনি যদি ভাবেন যে আপনার কাছে সময় নেই, আবার চিন্তা করুন। সময় কোথায় যায়? কিভাবে আপনি আপনার দিন অতিবাহিত করেন? আপনি কোন কাজে আপনার বেশিরভাগ সময় ব্যয় করেন?
আপনি যখন নিজের সময়টি কীভাবে ব্যবহার করবেন তা ঠিক করতে পারবেন তখন আপনাকে আর অযথা অজুহাত দিতে হবেনা।

২) মূলধন, অর্থ বা রিসোর্স নেইঃ
“আমার কাছে টাকা নেই” আর একটি সাধারণ অজুহাত। আপনি যদি কোনও ব্যবসা শুরু করতে চান তবে আপনার মূলধন নেই, আপনার কী করা উচিত? আপনি কি থেমে যাবেন এবং আপনার স্বপ্নটি ব্যর্থ হতে দেবেন? প্রকৃতপক্ষে এটি অর্থ বা মূলধনের অভাব নয়, বরং এটি সৃজনশীলতার অভাব।
আপনি যখন টাকা দিয়ে শুরু করবেন না তখন আপনি আর কী করতে পারেন? আপনি অন্য কারও সাথে অংশীদারি করতে পারেন? আপনি ব্যাংক বা আপনার পরিচিত কারও কাছ থেকে লোন নিতে পারেন। অর্থোপার্জনের জন্য নিজের অর্থের প্রয়োজন হয়, এটা সম্পুর্ণ সত্য নয়। অভিজ্ঞতা এবং প্রয়োজনীয় দক্ষতা না থাকলে আপনার কাছে যতই অর্থ থাকুক না কেন আপনি ব্যর্থ হবেন।

আপনাকে শুন্য থেকে শুরু শিখতে হবে। আপনার ব্যবসার সকল ইনস এবং আউটস শিখতে হবে। আপনার ১ মিলিয়ন ডলার আয় করার আগে আপনাকে অবশ্যই ১ ডলার আয় করতে শিখতে হবে।
স্টিভ জবস এবং স্টিভ ওয়াজনিয়াক সেই বিখ্যাত জুটি ছিলেন যারা ক্যালিফোর্নিয়ায় পিতামাতার গ্যারেজ থেকে শুরু করেছিলেন। তাদের যখন আরও অর্থের প্রয়োজন পড়েছিল তখন জবসকে ২৫০০০০ ডলারের ব্যাংক লোন পাওয়ার জন্য একজন সহ-স্বাক্ষরকারীকে সন্ধান করতে হয়েছিল।
মাইকেল ডেল তার ক্যাম্পাস ডর্ম থেকে ডেল কম্পিউটার শুরু করেছিলেন। পুরোপুরি তাঁর সংস্থার উপর ফোকাস দেওয়ার জন্য তিনি শেষ পর্যন্ত তাঁর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সরে আসেন। তার প্রথম বিনিয়োগ? মাত্র ১০০০ ডলার যা তিনি তার পরিবার থেকে নিয়েছিলেন।
বেশিরভাগ উদ্যোক্তা শুন্য থেকেই শুরু করেছিলেন। আপনি যদি মনে করেন যে ব্যবসা সফল করার জন্য আপনার কাছে অর্থ নেই তবে আপনি অজুহাত দেখচ্ছেন।

৩) যোগ্যতা বা প্রয়োজনীয় দক্ষতা নেইঃ
“আমি জানি না কীভাবে”,
“আমার অভিজ্ঞতা নেই”,
“আমি শিক্ষিত নই”,
“আমার যোগ্যতা নেই”,
“আমার কাছে দক্ষতা নেই” ইত্যাদি।
আপনি এই অজুহাত গুলো আকড়ে ধরে আছেন? আপনি কি জানেন, এই অজুহাতগুলোই আপনি জীবনে যা চান তা পেতে বাধা দিচ্ছে? কোন বিষয়ে আপনার জানা না থাকলে যে জানে তার হেল্প নিন, সব বিষয়ে যে আপনাকে জানতে হবে এমনটি জরূরী না । তাই আর অজুহাত নয়, সফলতা না আসা পর্যন্ত চেষ্টা চালিয়ে যান।

আজ এই পর্যন্ত।
সুস্থ থাকুন,ভাল থাকুন।

(Visited 26 times, 26 visits today)


শেয়ার করুন আপনার বন্ধুদের সাথে
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

One Comment

Submit a Comment

Must be required * marked fields.

:*
:*

সাম্প্রতিক মন্তব্যসমূহ