MD.Raju / মে 23, 2020

কিভাবে WhatsApp অ্যাকাউন্ট হ্যাক হয় এবং হ্যাকিং থেকে বাঁচার উপায়

শেয়ার করুন আপনার বন্ধুদের সাথে

আপনি কি জানেন, সোশ্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং এর মাধ্যমে আপনার বন্ধু বা সহকর্মী খুব সহজেই আপনার WhatsApp অ্যাকাউন্টটি হ্যাক করতে পারে ?
আপনার WhatsApp অ্যাকাউন্ট হ্যাক করতে তাদের বিশেষ কোন কিছুর প্রয়োজন পড়বে না। একাউন্টটি হ্যাক করার জন্য মাত্র দুটি জিনিস লাগবে,  ১) WhatsApp অ্যাকাউন্ট এর মোবাইল নাম্বার জানা লাগবে এবং ২) ফোনের স্ক্রিনে একবার নজর দেয়া লাগবে।
ব্যস হয়ে গেল আপনার একাউন্ট হ্যাক। এর ফলে হ্যাকার আপনার সকল পারসোনাল ম্যাসেজ ও কললিস্টে প্রবেশাধিকার পেল।
আপনার WhatsApp অ্যাকাউন্ট হ্যাক করতে তাকে ফোন আনলক করতে হবে না, জানা লাগবে না আপনার WhatsApp অ্যাকাউন্ট এর পাসওয়ার্ড বা ইমেইল এড্রেস।

কি, আশ্চর্য হচ্ছেন নাকি? হ্যাঁ, এতই সহজ WhatsApp অ্যাকাউন্ট হ্যাক করা।

এখন জেনে নিন কিভাবে আপনি এই হ্যাকিং এর  শিকার হতে পারেন। আপনি একটি ডেমো WhatsApp অ্যাকাউন্ট ক্রিয়েট করে সেটা হ্যাক করার জন্য নিম্নের পদ্ধতিটা প্রয়োগ করে দেখতে পারেন।
এই হ্যাকটি করতে হলে প্রথমে আপনার ফোনে WhatsApp এপ টি ইন্সটল করে নিন। পূর্বেই যদি আপনার ফোনে এপটি ইন্সটল করা থাকে তবে আনইন্সটল করে নিবেন।

এখন অপেক্ষা করুন সুযোগের জন্য, কখন টার্গেট ( যার একাউন্ট হ্যাক করবেন ) তার ফোন থেকে কিছু সময়ের জন্য দূরে যাবে যাতে আপনি তার ফোনের স্ক্রিনে এক নজর দেখতে পারেন।

ধরুন, টার্গেট তার সেটটি রেখে বাথরুম বা অন্য কোথাও গেল। আপনি আর দেরি না করে তখনই আপনার সেটের WhatsApp টি ওপেন করুন। ওপেন করার পর WhatsApp আপনাকে নাম্বার এন্টার করতে বলবে। এখানে আপনি টার্গেট এর একাউন্টের নাম্বার টি দিবেন। নাম্বার এন্টার করার পর টার্গেট এর ফোনে ছয় ডিজিটের একটা কনফারমেশন কোড যাবে । যেহেতু বর্তমানের সকল এন্ড্রোয়েড ও আইফোনে text-message previews ডিফল্ট ভাবে এনাবল করা থাকে, সেহেতু ফোন লক থাকলেও আপনি ম্যাসেজে পাঠানো কোডটি দেখতে পারবেন। এখন টার্গেট এর  ফোনের স্ক্রিনে একনজর তাকিয়ে আপনাকে কোডটি মুখস্ত করে নিতে হবে। এরপর আপনার সেটে এই কোড টি ইন্টার করলেই হয়ে গেল তার একাউন্ট হ্যাক। এই সম্পুর্ণ প্রসেস টি করতে দশ সেকেন্ডের ও কম সময় লাগে। একটি WhatsApp অ্যাকাউন্ট কেবলমাত্র একটি ফোনেই ব্যবহার করা যায় বলে টার্গেট তার একাউন্টে প্রবেশাধিকার হারাবে এবং আপনি তার সকল ম্যাসেজ, কললিস্ট আপনার গুগল ড্রাইভে ট্রান্সফারও করে নিতে পারবেন।

প্রাইভেসি নিয়ে চিন্তিত হয়ে পড়লেন নাকি। না, আতঙ্কিত হবেন না। এই হ্যাক থেকে কিভাবে নিজেকে সুরক্ষিত রাখবেন তা নিচে আলোচনা করছি। পড়তে থাকুন।

এই হ্যাক থেকে বাঁচার সবচেয়ে সহজ উপায় হচ্ছে আপনার WhatsApp অ্যাকাউন্টে একটি পিন নাম্বার সংযুক্ত করা। WhatsApp একে two-step ভেরিফিকেশন বলে।
এটি করতে হলে প্রথমে Whatsapp এর settings এ যান। এরপর এখানে Account বলে যে অপশনটি পাবেন তাতে ক্লিক করুন। এরপর সেখান থেকে Two-Step Verification অপশনে ক্লিক করুন। ক্লিক করার পর আপনাকে ছয় ডিজিটের একটি পিন নাম্বার তৈরি করতে বলা হবে। এটাই হচ্ছে আপনার two-step verification পিন।
আপনার WhatsApp অ্যাকাউন্টটি অন্য কোন ফোনে ব্যবহার করতে গেলে এই পিন টি প্রবেশ করতে হবে , নয়তো আপনি অন্য কোন ফোনে এই একাউন্ট টি ব্যবহার করতে পারবেন না।
এছাড়া এখানে আপনি একটি ইমেইল এড্রেস যুক্ত করবেন, যেন পিন হারিয়ে গেলে সেটা পুনরুদ্ধার করতে পারেন এবং অবশ্যই অবশ্যই ফোনের লকস্ক্রিন থেকে SMS-message previews অপশন টি ডিজেবল করে দিবেন।

আজ তাহলে এই পর্যন্ত।
সুস্থ থাকুন, ভাল থাকুন।
ধন্যবাদ।
আসসালামু আলাইকুম।

(Visited 1,434 times, 15 visits today)


শেয়ার করুন আপনার বন্ধুদের সাথে

Comments

  • tasnim says

    এটা সব সোসাল মিডিয়ার ক্ষেত্রেই প্রযোজ্য। ফেসবুক কিংবা ইন্সটাও এভাবে হ্যাক হতে পারে। টু-স্টেপ ভেরিফিকেশন ও ই-মেইল ঠিকানা ব্যাবহার করা ব্যাক আপের কাজ করে।

  • Kader says

    WhatsApp এ এই সেটিং টা করা আছে। ধন্যবাদ!

Comments are closed.