Mistakes that cause mobile phone batteries to explode

tasnim / জানুয়ারী 7, 2021

যে ভুলগুলোর কারণে মোবাইলের ব্যাটারি বিস্ফোরিত হয়

শেয়ার করুন আপনার বন্ধুদের সাথে
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

কয়েক দশক আগে শুধুমাত্র কথা বলার জন্য ফোন ব্যবহার হলেও বর্তমানে প্রযুক্তির উন্নতির কারণে পুরো দুনিয়াই এসে আটকে গেছে স্মার্টফোনের ভেতর। এখন আর কেউ শুধু কথা বলার জন্য ফোন ব্যবহার করে না। শিক্ষা থেকে শুরু করে বিনোদন, চিকিৎসা সবকিছুর জন্যই যেন মানুষ এখন এর উপর নির্ভরশীল। এমন কোনো মানুষ হয়তো খুঁজে পাওয়া যাবে না যিনি কি না স্মার্টফোন কি তা জানেন না। স্মার্টফোন যেহেতু একটি ইলেকট্রনিক ডিভাইস তাই সামান্য কারণেই বিরাট বড় দুর্ঘটনা এই স্মার্টফোনের দ্বারা হয়ে যেতে পারে। বেশ কিছুদিন ধরে এমন রেকর্ডও পাওয়া যাচ্ছে যে, শুধুমাত্র স্মার্টফোনের ব্যাটারি ব্লাস্ট হয়ে ব্যবহারকারীকে হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি হতে হয়েছে। সুতরাং স্মার্টফোন যেরকম আপনার জীবন খুব সহজ করে দিয়েছে ঠিক সেরকমই বিপদও ডেকে আনছে। এখন এই বিপদ থেকে বাঁচতে কি আপনি স্মার্ট ফোন ব্যবহার করা ছেড়ে দিবেন?

উত্তরটি খুব সহজ। অবশ্যই না। স্মার্টফোন ছাড়লে আপনার, আমার সকলের জীবন থেমে থাকবে। তাই আমরা স্মার্টফোন ব্যবহার করা ছাড়বো না। বরং ঠিক কি কারণে স্মার্টফোনের ব্যাটারি ফুলে গিয়ে ব্লাস্ট হওয়ার মতো দুর্ঘটনা ঘটতে পারে সেই কারণগুলো জেনে নিব এবং তা থেকে যতটা সম্ভব দূরে থাকার চেষ্টা করব। তো চলুন কারণ গুলো জেনে নেয়া যাক-

১) চার্জে লাগিয়ে ফোন ব্যবহার করা

চার্জে লাগিয়ে ফোন ব্যবহার করার অভ্যাস বর্তমান প্রজন্মের জন্য খুবই সাধারন হয়ে গিয়েছে। মারাত্মক এই ভুলটি করার জন্য আজ পর্যন্ত কিন্তু অনেক মানুষের প্রাণহানিও হয়েছে। ফোনে আপনার যতই জরুরী কাজ থাকুক না কেন, চেষ্টা করুন যখন ফোনের চার্জ শেষ হয়ে যাবে তখন ফোনকে ভালোমতো চার্জে দিয়ে তারপর ব্যবহার করতে। কেননা চার্জে লাগিয়ে ফোন ব্যবহার করে আপনি হয়তো নিজেও জানেন না, কি বড় সর্বনাশটা করতে যাচ্ছেন। ব্যাটারির উপর প্রচুর চাপ পড়ে যখন ফোন চার্জরত অবস্থায় ব্যবহার করা হয়। এই সাধারণ ও মারাত্মক ভুলটি করা থেকে বিরত থাকুন।

২) ফোনে অতিরিক্ত চার্জ দেয়া

আমাদের মধ্যে অনেকেই এমন রয়েছেন যারা সারাদিন ফোন ব্যবহার করার জন্য সারারাত ফোন চার্জে লাগিয়ে রাখেন। কেননা সকালে উঠে আপনার প্রথম প্রত্যাশা হচ্ছে মোবাইলে ১০০% চার্জ দেখা। কিন্তু ফোন চার্জ হওয়া সত্তেও যদি তা চার্জে লাগিয়ে রাখা হয়, তবে এখানে ফোনটি ওভার হিট হয়ে যাচ্ছে। যেটার কারণে সরাসরি ব্যাটারির উপর প্রভাব পড়ছে। তাই দীর্ঘক্ষন ফোন চার্জারে না লাগিয়ে রেখে সীমিত সময়ের জন্য চার্জ দিন। অথবা ফোন ফুল চার্জ হয়ে গেলে সাথে সাথে চার্জার খুলে ফেলুন। অন্যথায় ব্যাটারির উপর চাপ পড়ে তা ব্লাস্ট হয়ে যেতে পারে।

৩) গঠনগত কারণ

ফোনের গঠনগত কারনেও ব্যাটারির প্রবলেম হয়ে থাকে। এটিতে সাধারণত ব্যবহারকারীর কোন দোষ থাকে না। তবে আপনি চাইলে ফোনটি কেনার পূর্বেই সবকিছু দেখেশুনে ভালো করে চেক করে কিনতে পারেন। অথবা ফোন ব্যবহার করার সময় যদি এরকম কোন গঠনগত ক্রুটি টের পান তখন চেষ্টা করুন ফোনটি বদলে ফেলার। ফোনের ওয়ারেন্টি থাকাকালীন মোবাইল বদলে ফেললে সাধারণত কোন খরচ পড়ার কথা না। বিভিন্ন মোবাইল কোম্পানির অনেক বেশি মোবাইল তৈরি করার সময় ভুলক্রমে ব্যাটারির লিথিয়াম-আয়ন পরীক্ষা না করে অথবা অন্যান্য কোন সমস্যার কারণে ডিভাইসটি নষ্ট হয়ে যেতে পারে। তাই ফোন ব্যবহার করার সময় যদি কোনো ধরনের ইঙ্গিত পান, দেরি না করে সাথে সাথে ফোন বদলে ফেলুন।


৪) অসাবধানতাবশত ফোন হাত থেকে পড়ে যাওয়া

কেউ তো আর তার নিজের সাধের স্মার্টফোন হাত থেকে ইচ্ছে করে ফেলে দেয় না। অনেকটা অনিচ্ছাকৃত কারণেই স্মার্টফোন হাত থেকে কিংবা উঁচু স্থান থেকে পড়ে যায়। একবার দুবার পড়লে কোনো অসুবিধা হয়তো হয় না। কিন্তু বারবার যখন স্মার্টফোনটি মাটিতে পড়তে থাকে প্রত্যেকবার সেটি শারীরিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হতে থাকে। তাই স্মার্টফোন হাতে থাকাকালীন বেশ সাবধান থাকুন এবং খুব শক্ত ধাঁচের কভার ব্যবহার করুন। একই সাথে মোবাইলের ডিসপ্লে ঠিক রাখার জন্য আলাদা করে উন্নত স্ক্রীন ব্যবহার করতে পারেন।

৫) সস্তা চার্জার ব্যবহার

স্মার্টফোনের অরজিনাল চার্জার কোন কারণে নষ্ট হয়ে গেলে আলসেমিবশত বা কৃপণতা করে আমরা সস্তা চার্জার কিনে ফেলি। এই কাজটি করা ঠিক নয়। এসব সস্তা চার্জার বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই নকল হয়ে থাকে। যার ফলে মোবাইলের ব্যাটারি দ্রুত ফুলে উঠতে থাকে। এসব সস্তা চার্জার ব্যবহার করা পরিহার করুন এবং অরিজিনাল চার্জার কেনার সময় লোগো দেখে কিনুন।

৬) রোদে ফেলে রাখা

সূর্যের রোদ আমাদের নিকট গুরুত্বপূর্ণ বটে। তবে এর অতিবেগুনি রশ্মি মোটেই ভালো নয়। সানবার্ন এর কারণে যেরকম আপনার ত্বকে সমস্যা সৃষ্টি হয়, ঠিক সেরকমই দীর্ঘ সময়ের জন্য ফোন রোদে ফেলে রাখলে তা ফোনের ব্যাটারির ওপরও প্রভাব ফেলতে পারে। কেননা দীর্ঘক্ষন ফোন রোদে ফেলে রাখলে তা আগুনের মত গরম হয়ে যায় এবং ব্যাটারি ব্লাস্ট হয়।

৭) অতিরিক্ত ভারী অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করা বা গেম খেলা

ফোনে অতিরিক্ত ভারী অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করা কিংবা দীর্ঘক্ষন ধরে গেম খেলার কারণে ফোনে অনেক জাঙ্ক ফাইল জমা হয়। এতে মোবাইলের স্টোরেজ এ জায়গা খালি থাকে না। সেইসাথে অতিরিক্ত গেম খেলার ফলে চাপ পড়ে ব্যাটারির ওপরে। যার কারণে দেখা যায় মোবাইলের ব্যাটারি ফুলে ফেঁপে উঠেছে এবং অপেক্ষা করছে ব্লাস্ট হয়ে যাবার।  অতিরিক্ত গেম খেলা কখনই ভালো নয়। বিশেষ করে স্মার্টফোনে অতিরিক্ত গেম খেললে তার প্রভাব ব্যাটারির উপর পড়ে। তাই চেষ্টা করুন যে সকল এ্যাপলিকেশন বেশি জায়গা জুড়ে থাকে সেগুলো ব্যবহার কমাতে। আর যদি একান্তই জরুরী কারণে অ্যাপ্লিকেশনগুলো ব্যবহার করতে হয় তখন কিছুক্ষণ পর পর জাঙ্ক ফাইল গুলো রিমুভ করার অভ্যাস তৈরি করুন। অতিরিক্ত গেমখেলার ক্ষেত্রে এখুনি সতর্ক হয়ে যান।

আশা করি মোবাইলের ব্যাটারি ফুলে ফেঁপে ওঠার এবং তাড়াতাড়ি নষ্ট হয়ে যাবার কারণগুলো এতক্ষণে আপনার জানা হয়ে গেছে। চেষ্টা করবেন এই সকল কাজগুলো করা থেকে দূরে থাকার। আজকে আর্টিকেলটি এখানেই শেষ করছি। ভালো থাকবেন, সুস্থ থাকবেন, ধন্যবাদ।

(Visited 228 times, 228 visits today)


শেয়ার করুন আপনার বন্ধুদের সাথে
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Submit a Comment

Must be required * marked fields.

:*
:*