tasnim / অক্টোবর 5, 2020

চুলোয় তৈরী ভ্যানিলা কেক রেসিপি

শেয়ার করুন আপনার বন্ধুদের সাথে

কেক আমাদের অনেকেরই পছন্দনীয় একটি স্ন্যাক্স। বেশিরভাগ সময় আমরা বাইরে থেকে বিভিন্ন বেকারী কিংবা কমার্শিয়াল কোম্পানীর প্রস্তুতকৃত নানা ধরনের কেক কিনে খেয়ে থাকি। তবে বর্তমানে খাদ্যে-ভেজালের নানা সংবাদ যেভাবে প্রতিনিয়ত শুনতে পাওয়া যায়, বাইরের তৈরী এ কেক গুলো পুরোপুরি স্বাস্থ্য-সম্মত কি না, তা নিয়ে অনেকের মনেই সন্দেহ থেকে যায়।  এজাড়াও অনেকে বাইরের খাবার পরিহার করে চলেন, আবার দেখা যায় অনেকে বাসায় কেক বানাতে চাইলেও পারেন না, কারণ ওভেন নেই। তাই আজকে আপনাদের নিয়ে এলাম জন্য ওভেন ছাড়া চুলোয় নরম ও মজাদার কেক তৈরির সহজ রেসেপি। তো চলুন শুরু করা যাক-

ওভেন ছাড়া চুলোয় নরম ও মজাদার কেক তৈরি করতে যা যা লাগবে-

উপকরণ

১) ময়দা ১ কাপ পরিমাণ
২) ডিম তিনটি
৩) চিনি ১ কাপ পরিমাণ
৪) বেকিং পাউডার ১ চা চামচ
৫) ভ্যানিলা এসেন্স (১/২ ফোটা)
৬) তেল ১ কাপ পরিমাণ
৭) গুড়া দুধ ১ কাপ পরিমাণ

প্রণালীঃ

প্রথমে একটি বাটিতে, তিনটি ডিম ফেটে নিতে হবে। যদি ডিম রেফ্রিজারেটরে সংরক্ষণ করে রাখা হয়, তবে কেক তৈরি করার ৩০ মিনিট আগে ডিমগুলোকে বাহিরে বের করে আনতে হবে। যাতে ডিমগুলোর তাপমাত্রা ঘরের তাপমাত্রার সাথে বেড়ে যায়। ডিম বের করে আনার ৩০ মিনিট পর ডিমগুলো ফাটিয়ে নিতে হবে। এরপর ডিমের মধ্যে দিতে হবে এক কাপ পরিমাণ চিনি। উভয়কে একসাথে হ্যান্ড বিটার কিংবা ইলেকট্রিক বিটার থাকলে ইলেকট্রিক বিটার দিয়ে বিট করে নিতে হবে যতক্ষণ পর্যন্ত চিনির দানা একেবারে গলে না যায়। হ্যান্ড বিটার দিয়ে করলে ১০ মিনিট বিট করলেই চিনির দানা ডিমের সাথে মিশে যায়। তাই ১০ থেকে ১৫ মিনিট হ্যান্ড বিটার দিয়ে বিট করাই যথেষ্ট। এছাড়াও আপনি হ্যাণ্ড বিটারের পরিবর্তে কাটা চামচের ব্যবহার করতে পারেন।

চিনির দানা একেবারে গলে গেলে তার মধ্যে ১ কাপ পরিমাণ তেল দিয়ে আবার বিট করে নিতে হবে। যতক্ষণ পর্যন্ত তেলের সাথে মিশ্রণটি মিশে না যায়। এরপর অন্য একটি পাত্রে ১ কাপ ময়দা, ১ চা চামচ বেকিং পাউডার, ১ কাপ পরিমাণ গুঁড়ো দুধ একসাথে মিশিয়ে নিতে হবে। এরপর শুকনো উপাদানগুলোর মিশ্রণ একসাথে ছেঁকে নিয়ে ডিমের মিশ্রণে দিতে হবে। অল্প অল্প করে ছেঁকে ছেঁকে ঢালতে হবে যাতে স্পেচুলা দিয়ে মাখাতে অসুবিধা না হয়। মিশ্রণটি ভালোভাবে মিশে গেলে তাতে ভ্যানিলা এসেন্স ১/২ ফোটা দিতে হবে। মনে রাখবেন বেশি ভ্যানিলা এসেন্স দিয়ে দিলে পরে সেটা আবার খাওয়ার যোগ্য হবেনা। ভ্যানিলা এসেন্স দিয়ে মিশ্রনটিকে আবার ভালো করে মিশিয়ে নিতে হবে।

এরপর একটি সসপ্যানে তেল মাখিয়ে নিতে হবে। তেল মাখানো হয়ে গেলে তাতে বেকিং পেপার কিংবা বাড়িতে বেকিং পেপার না থাকলেও খাতার কাগজ কেটে সসপ্যানের আকার করে সসপ্যানের তলদেশে ও চারপাশে কাগজ দিয়ে ঢেকে দিতে হবে যাতে কেক সসপ্যানে লেগে না যায়।

অতঃপর কেক তৈরির মিশ্রণটি ঝাঁকি দিয়ে বাতাস বের করে নিতে হবে। সসপ্যানে মিশ্রণটি ঢেলে অতঃপর মিশ্রনটিকে ভালোভাবে ঢেকে চুলায় হালকা আঁচে (একদম কম আঁচে) সস প্যানটি বসিয়ে দিতে হবে। অবশ্যই চুলার উপর সরাসরি দিবন না। একটি তাওয়ার উপর বসাবেন।

৪০ থেকে ১ ঘন্টার মধ্যে আপনার কেক প্রস্তুত হয়ে যাবে। তবে মাঝে মাঝে এসে অবশ্যই আপনাকে পর্যবেক্ষণ করে নিতে হবে যে, কেকটি আসলেই হয়েছে কি না। কারণ চুলোর আঁচের উপর ভিত্তি করে কেকটি আগে অথবা পড়ে তৈরি হয়ে যেতে পারে।

শুকনো কাঠি অর্থাৎ টুথপিক দিয়ে কেকের ভেতরে ঢুকিয়ে আবার উপরে উঠালে যদি দেখেন যে কাঠিটি পুরো পরিষ্কার বের হচ্ছে, তাহলে ধরে নেবেন আপনার কেক তৈরি।

অতঃপর আশেপাশের কাগজ উঠিয়ে পরিবেশন করুন মজাদার কেক। ঘরে তৈরি মজাদার এবং নরম কেক পেতে অবশ্যই এই রেসিপিটি ফলো করবেন। আজ এ পর্যন্তই, ধন্যবাদ।

(Visited 85 times, 2 visits today)


শেয়ার করুন আপনার বন্ধুদের সাথে